Wednesday , 7 December 2022
সংবাদ শিরোনাম
সেনবাগে কনজাংটিভাইটিস বা চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ বাড়ছে ॥ আক্রান্তরা মানছে না স্বাস্থ্যবিধি

সেনবাগে কনজাংটিভাইটিস বা চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ বাড়ছে ॥ আক্রান্তরা মানছে না স্বাস্থ্যবিধি

September 21, 2022 তে 9:31 pm

জাহাঙ্গীর পাটোয়ারী
দিন যতই যাচ্ছে সময় সাথে পাল্লা দিয়ে নোয়াখালীর সেনবাগে চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ ততই  বাড়ছে। প্রায় প্রতিটি পাড়ায় কোন না  কোন পরিবারে কেউ না কেউ এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। কেউ মানছে না স্বাস্থ্যবিধি।

চিকিৎসকরা বলছেন, গরমে আর বর্ষায় চোখ ওঠার প্রকোপ বাড়ে। চিকিৎসা বিজ্ঞানে এটিকে কনজাংটিভাইটিস বা কনজাংটিভার বলা হয়। তবে স্থানীয়ভাবে এ সমস্যাটি চোখ ওঠা (চোখ লইছে)নামেই পরিচিত। রোগটি ছোঁয়াচে। ফলে দ্রুত অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।

উপজেলার বিদ্যাবন একাডেমীর ৫র্থ শ্রেণির ছাত্রী সায়মা আক্তার ও ২ম শ্রেণির ছাত্র আয়মন বলেন, ‘চোখে কাটা কাটা বাজে। চুলকায়। আলোর দিকে তাকাতে পারি না। ঘুম থেকে উঠে দেখি দু’চোখ আটকিয়ে গেছে।

কাদরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আল আমিন বলেন, প্রতিটি ক্লাসে ১০/১৫ জন আক্রান্ত ‘আক্রান্তদের আমরা ছুটির ব্যবস্থা করে দেই।’

এস এস সি পরিক্ষা সেনবাগ কেন্দ্রের সচিব ও টুংকু আবদুল রহমান মেমোরিয়াল একাডেমীর প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলাম বলেন, প্রতিটি রুমেই ‘আক্রান্ত শিক্ষার্থী আছে। তারা কেউ সান গ্লাস পরে আবার কেউ না পরে আসে।

সেনবাগ  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের সহকারী চিকিসৎক মাসুদ বলেন,  হাসপাতালে যত জন রোগী আসেন তাদের মধ্যে ১১/১৫ জনই ছিলেন চোখ ওঠার রোগী। তবে এই সংখ্যা বহিঃবিভাগে আরো বেশী।

মীম  ফার্মেসি ওমর ফারুক সহ ওষধ দোকান মালিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত কয়েক দিনে চোখের ড্রপের চাহিদা বেড়ে চলছে। এতে আক্রান্ত ব্যক্তিরা চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়েই চোখের ড্রপ ও অ্যান্টিহিস্টামিন ওষুধ সেবন করছেন। এসব ওষুধ সেবন করে অনেকেই দুই তিন দিনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন। আবার কেউ ৫-৭ দিন। তবে চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিরা রোগটি ছোঁয়াচে জেনেও তারা তাদের প্রাত্যহিক কাজ করে যাচ্ছেন। মেলামেশা করছেন সবার সঙ্গেই।’

সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মহিবুস ছালাম খাঁন সবুজ বলেন, ‘চোখ ওঠা ছোঁয়াচে রোগ একজনের থেকে অন্যজনের হতে পারে। আক্রন্তদের উদ্বিগ্ন না হয়ে চক্ষু চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। পাশাপাশি বাসায় আইসোলেশনে থাকতে হবে।’

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top